শেখ হাসিনা সরকার দেশে প্রতিটি হত্যাকাণ্ডের বিচারে সোচ্চার থেকেছে। অপরাধীকে দলীয় পরিচয়ে বাঁচানোর চেষ্টা করেনি, অপরাধী যে দলেরই হোক, বিচারের আওতায় আনা হয়েছে। বললেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।
রোববার (০৯ আগস্ট) গোপালগঞ্জ সড়ক জোন, বিআরটিএ ও বিআরটিসির কর্মকর্তাদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন তিনি। ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ মতবিনিময় সভায় যুক্ত হন।
ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনৈতিক পরিচয় যে অপরাধীর আত্মরক্ষার ঢাল হতে পারে না, তা শেখ হাসিনা তা প্রমাণ করেছেন।
এ সরকার জনগণের মনের ভাষা বোঝে বলেই যে কোনো বিষয়ে দ্রুততম সময়ে ব্যবস্থা নেয় উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘যে কোনো অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের অবস্থান অত্যন্ত কঠোর এবং তা এরই মধ্যে প্রমাণ হয়েছে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কেউ কেউ নানাভাবে কথা বলেন৷ তাদের কাছে আমার প্রশ্ন, ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান, স্বাস্থ্যখাতে জেকেজি, রিজেন্ট গ্রুপের বিরুদ্ধে চলমান অভিযান চালানোর আগে সরকারকে কেউ কি বলে দিয়েছিল? না, বলে দেয়নি। সরকার নিজেই এসব অনিয়ম উদঘাটন করেছে, কোনো ধরনের ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেনি। যারা সরকারের সমালোচনা করছেন, তাদের আমলে অনিয়ম দুর্নীতির বিরুদ্ধে তারা কী ব্যবস্থা নিয়েছিলেন? দুর্নীতিতে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন আর দুর্নীতিকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়াই তাদের সফলতা।’

মন্তব্য করুন

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন