পিতা হারালেন ইমরুল কায়েস, সপরিবারে কোয়ারেন্টিনে

শেয়ার করুন:


প্রায় এক মাস মৃত্যুর সঙ্গে লড়াই করে মৃত্যুর কাছে হেরে গেলেন জাতীয় দলের ক্রিকেটার ইমরুল কায়েসের পিতা মো. বানি আমিন বিশ্বাস। মৃত্যুকালে তার বয়স ছিল ৫৮ বছর।

আজ রাত ৯টার দিকে ঢাকার একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। গত ২৩ মার্চ বেলা ১০ টার দিকে মেহেরপুর-কাথুলি সড়কের ছহিউদ্দীন ডিগ্রি কলেজের সামনে অবৈধ যান নছিমনের ধাক্কায় গুরুতর আহত হন তিনি। এরপর মুমুর্ষ অবস্থায় হেলিকপ্টার যোগে ঢাকা নিয়ে আসা তাকে।

রাতে মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেছেন ইমরুল কায়েসেরে মামাতো ভাই নাহিদ আজিম রাব্বি।

নাহিদ আজিম রাব্বি বলনে, মরদহে নিয়ে ইমরুল ভাই ঢাকা থেকে রওয়ানা দিয়েছেন বাড়ির উদ্দেশে। গ্রামেইে জানাযা ও দাফন সম্পন্ন করতে পারিবারিক ভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।


এদিকে মেহেরপুর সদর উপজেলার উজলপুর গ্রামের বাড়িতে জাতীয় দলের ক্রিকেটার ইমরুল কায়েস সপরিবারে হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন।

আজ সোমবার দুপুরে তার বাবার দাফন শেষে স্বাস্থ্য বিভাগের নির্দেশনায় তিনি কোয়ারেন্টিনে যান।

মেহেরপুর সিভিল সার্জন ডা. নাসির উদ্দীন জানান, ‘ক্রিকেটার ইমরুল কায়েস সরকারের নির্দেশনার প্রতি শ্রদ্ধাশীল। যেহেতু তিনি ঢাকা থেকে এসেছেন তাই পরিবারের সবাইকে নিয়ে নিজ বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে থাকতে বলা হয়েছে। তিনি এখন গ্রামের বাড়িতে কোয়ারেন্টিনে আছেন।’

এদিকে সোমবার (২০ এপ্রিল) সকালে ঢাকা থেকে ইমরুল কায়েসের বাবার মরদেহ মেহেরপুর সদর উপজেলার উজলপুর গ্রামের বাড়িতে পৌঁছায়। সকাল সাড়ে ১০ টার সময় তার নিজ বাড়ির সামনে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে আগেই জনসমাগম নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছিল। তাই শুধুমাত্র পরিবারের সদস্যরা জানাজায় অংশ নেন।
জানাজা অনুষ্ঠানে ইমরুল কায়েস তার বাবার আত্মার মাগফেরাত কামনা করে সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। এছাড়াও দেশের দুর্যোগ এ মুহূর্তে সবাইকে নিয়ে জানাজা করতে না পারায় সবার কাছ থেকে ক্ষমা চেয়েছেন তিনি।


শেয়ার করুন:

রিপ্লাই/মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন
এখানে আপনার নাম লিখুন