Nidahas Trophy 2018 Final

অঘোষিত সেমিফাইনাল, যেখানে জিতলেই ফাইনালের হাতছানি। এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে দলে থেকেও বল করার সুযোগ হলো না বিশেষজ্ঞ স্পিনার নাজমুল ইসলাম অপুর। দুই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান উইকেটে ছিলেন বলেই তাকে বল করানোর সাহস দেখাননি অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। এমনকি শুরুতে দুই ওভার বল করার পর অধিনায়ক নিজেও আর বোলিংয়ে আসেননি। আর এটাকে ভুল সিদ্ধান্ত মনে করছেন সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল।

এদিকে আজকের ফাইনালে বাংলাদেশের প্রতিপক্ষ ভারত। যেখানে বাঁহাতির তুলনায় ডানহাতি ব্যাটসম্যানদের আধিক্যই বেশি। আর কোনো দলই চায় না তাদের উইনিং কম্বিনেশন ভাঙতে। তাই সাবেক অধিনায়ক আশরাফুল ও ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফিরও চাওয়া উইনিং কম্বিনেশন না ভাঙতে।

সাকিবের মতো বিশ্বমানের বোলার যেকোনো ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে সফল হবেন বলে মনে করেন আশরাফুল। তাই ফাইনালে ভারতের বিপক্ষেও একই কম্বিনেশন চান টেস্ট ক্রিকেটের সর্বকনিষ্ঠ এ সেঞ্চুরিয়ান। আশরাফুলের মতো আগের ম্যাচের উইনিং কম্বিনেশন ধরে রাখার পক্ষে টাইগারদের ওয়ানডে দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা।

তবে শ্রীলঙ্কা দলের বাঁহাতিদের আধিক্য থাকলেও ভারতীয় দলে ডানহাতি ব্যাটসম্যানই বেশি। তাই ফাইনালে নাজমুল ইসলাম অপু কার্যকরী হয়ে উঠতে পারেন বলে মনে করেন আশরাফুল। তার মতে, ভারতের অনেক ডানহাতি আছে। অপু ওদের বিপক্ষে ভালো করবে। কালকে (আজ) আমার মনে হয় একই দল খেলা উচিৎ। এমন দারুণ একটা জয় হয়েছে। আর বাঁহাতি থাকলেও সাকিবের বল করা উচিৎ, অপুকেও বল দেয়া উচিৎ।

৪৮ দিন পর দলে ফিরে প্রথম ওভারেই বল হাতে নেন সাকিব। তখন লঙ্কানদের ইনিংসের শুরুতে ব্যাটিংয়ে ছিলেন দানুশকা গুনাথিলাকা। তার বিপক্ষে দারুণ বোলিং করেছেন সাকিব। এমনকি দ্বিতীয় ওভারের শুরুতে তাকে আউটও করেন। আর গুনাথিলাকা নিজে একজন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। আশরাফুলের যুক্তি সেখানেই। বাঁহাতি ব্যাটসম্যানের বিপক্ষে বাঁহাতি স্পিনারের সফল হওয়ার উদাহরণ নিজেই সৃষ্টি করেছেন। তারপরও তার বোলিংয়ে না আসা এবং অপুকে বোলিং না দেয়ার সিদ্ধান্ত ভুল মনে করছেন সাবেক এ অধিনায়ক। তিনি বলেন, ‘বাঁহাতি দেখে ওকে (অপু) বল দেয়নি, এ নিয়ে সাকিব দ্বিতীয়বার এ ভুল করলো। ও কিন্তু বিশ্বের সেরা একজন বোলার। আর ও কিন্তু প্রথম উইকেটটা শ্রীলঙ্কান বাঁহাতিকেই পেয়েছে। এমন না যে বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের কাছে বাঁহাতি বোলার বল করতে পারবে না। এমন চিন্তা আসে। আমিও যখন অধিনায়ক থাকি আমিও ভাবি। তবে এটা ভুল সিদ্ধান্ত।’

আশরাফুলের মতো মাশরাফিও অপুকে খেলানোর পক্ষেই কথা বললেন। যদিও আগের দিন অপুকে বোলিং না দেয়ার ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করেননি তিনি। তার মতে, অপুর পরিবর্তে রিয়াদকে দিয়ে বল করিয়েছে সাকিব। আর ওতো খারাপ করেনি। তবে ফাইনালে অপুকে রাখা উচিৎ। কারণ ভারতের ডানহাতি ব্যাটসম্যান বেশি। ওদের বিপক্ষে অপু ভালো বোলিং করবে আমার বিশ্বাস। ও খুব ভালো বোলার। তাই এই কম্বিনেশনটা হলেই ভালো হয়। বাকিটা ম্যানেজমেন্ট ও অধিনায়কের সিদ্ধান্ত।

বাঁহাতি বোলার বাঁহাতি ব্যাটসম্যানদের বিপক্ষে ভালো বোলিং করতে পারে না এটা মানতে নারাজ আশরাফুল। তার কথায় যুক্তিও আছে। ভারতের বিপক্ষে শিখর ধাওয়ানের বিপক্ষে বল করে দারুণ বোলিং করেছিলেন অপু। তার উপর ফাইনালে প্রতিপক্ষ ভারতই। তাই সাবেক দুই অধিনায়কের মতে উইনিং কম্বিনেশন রেখেই ভারতের বিপক্ষে মাঠে নামা উচিৎ।

মন্তব্য করুন

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন