হাসপাতাল থেকে হাসপাতালে ঘুরেছেন। কোথাও মেলেনি চিকিৎসা। নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁওয়ের মদনপুর থেকে অবশেষে রোমানাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে আসনে তার স্বামী।

সোমবার (১৫ জুন) দুপুরে হাসপাতালে ভর্তির আগে অ্যাম্বুলেন্সে অপেক্ষায় থাকা অবস্থায় স্বামী তাকে বেঁচে থাকার সাহস দিচ্ছিলেন। ওই ঘটনার কয়েকটি ছবি ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমগুলোতে প্রশংসায় ভাসছেন ওই স্বামী। অনেকেই এ ঘটনাকে ভালোবাসার অনন্য উদাহরণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

ফুসফুসের সংক্রমণসহ শ্বাসকষ্টে ভোগা রোমানাকে পরে ভর্তি নেয়া হয় হাসপাতালে। করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থাও করা হয়। তবে রোমানা করোনায় আক্রান্ত কিনা তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

এদিকে ‘বিনা চিকিৎসায় একজনের মৃত্যু নয়’ স্লোগানে মঙ্গলবার (১৬ জুন) দুপুর ১২টায় নারায়ণগঞ্জের সস্তাপুরে অবস্থিত সিভিল সার্জন অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ প্রদর্শন ও সিভিল সার্জন অফিসের মাধ্যমে স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন গণসংহতি আন্দোলনের সদস্যরা।

আসন্ন বাজেটে স্বাস্থ্য খাতের জন্য অন্তত ২০ ভাগ অর্থ বরাদ্দ করা, গণস্বাস্থ্যের করোনা টেস্টিং কিটের অনুমোদন দিয়ে ‘গণ টেস্টিং’ করা ও হাসপাতালের সেন্ট্রাল অক্সিজেনের ব্যবস্থাসহ সাতদফা দাবিতে অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেছে গণসংহতি আন্দোলন।

রিপ্লাই দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here