কিশোরীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন: গ্রেপ্তার যুব মহিলা লীগ নেত্রী বহিষ্কার

0 170

অনলাইন ডেস্ক:

ঢাকার সাভারে এক কিশোরীকে বিবস্ত্র করে ছবি তোলার চেষ্টা, নির্যাতনসহ বিভিন্ন অভিযোগে যুব মহিলা লীগের নেত্রী মেহনাজ মিশুকে (২৪) গ্রেপ্তার করে পুলিশ। শনিবার (১৯ আগস্ট) গ্রেপ্তারের পর তাকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করেছে যুব মহিলা লীগ।

যুব মহিলা লীগের সভাপতি ডেইজি সারোয়ার ও সাধারণ সম্পাদক শারমিন সুলতানা স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সংগঠনের শৃঙ্খলাপরিপন্থী কর্মকাণ্ডে যুক্ত থাকার অভিযোগ প্রাথমিকভাবে প্রমাণিত হওয়ায় ঢাকা জেলা উত্তর শাখার মেহনাজ মিশুকে সংগঠন থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হলো।

মেহনাজ মিশু ঢাকা জেলা (উত্তর) যুব মহিলা লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হলেও দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে ঢাকা জেলা (উত্তর) যুব মহিলা লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে পরিচয় দিতেন। শনিবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলা পরিষদ-সংলগ্ন বাসা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

পুলিশ জানায়, এক কিশোরীকে বিবস্ত্র করে ছবি তোলার চেষ্টাসহ নির্যাতনের নানা বিষয় উল্লেখ করে শনিবার সকালে থানায় লিখিত অভিযোগ দেন ভুক্তভোগী কিশোরীর মা। ওই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে সকালে তাকে আটক করে পুলিশ। পরে ভুক্তভোগীর মায়ের অভিযোগ মামলা হিসেবে নথিভুক্ত করে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

স্থানীয় সূত্র জানায়, ওই কিশোরীকে আটকে বিবস্ত্র ছবি তুলে রেখে দেন মেহনাজ মিশু। পরে তাকে অনৈতিক কাজে জড়িত হতে বাধ্য করেন। নানা ধরনের নেশাদ্রব্য সেবন করিয়ে রাখা হতো মেয়েটিকে। ২৫ জুলাই মিশু তার বাসার পঞ্চমতলার ছাদ থেকে ওই কিশোরীকে ফেলে দেন।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই কিশোরী গুরুতর আহত অবস্থায় সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। স্থানীয়ভাবে বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা করা হয়। তবে এতে সুরাহা না হওয়ায় শনিবার সকালে তার মা সাভার মডেল থানায় মামলা করেন।

এদিকে যুব মহিলা লীগের সভাপতি ডেইজি সারোয়ার বলেন, ‘মেহনাজ মিশুকে আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি না। তবে আমার স্বাক্ষর নকল করে তিনি নিজেকে ঢাকা জেলা (উত্তর) যুব মহিলা লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হিসেবে পরিচয় দিচ্ছেন, জানার পর স্থানীয় সংসদ সদস্যকে বিষয়টি জানিয়ে তাকে সতর্ক করা হয়। মেহনাজ মিশু আমাদের দলের কেউ নন।’

ঢাকা জেলার (উত্তর) বর্তমান কমিটিতে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হিসেবে মেহনাজ মিশুর নাম আছে, জানানো হলে ডেইজি সারোয়ার বলেন, ‘আমাদের আগের কমিটি ঢাকা জেলা (উত্তর) যুব মহিলা লীগের কমিটির অনুমোদন দিয়েছিল। সে ক্ষেত্রে আমরা এখন মেহনাজ মিশুর ব্যাপারে খোঁজ নেব। এরপর যাচাই করে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেব।’

Leave A Reply

Your email address will not be published.