আন্তর্জাতিক ডেস্ক:

ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের আসন্ন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সাত প্রার্থীর মধ্যে দ্বিতীয় টিভি বিতর্ক অনুষ্ঠিত হয়েছে।ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের ১৩ তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য চূড়ান্তভাবে মনোনীত সাত প্রার্থী হলেন, সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রায়িসি, মোহসেন রেজায়ি, মোহসেন মেহের আলীজাদে, সাঈদ জালিলি, আলী রেজা যাকানি, আব্দুন নাসের হেম্মাতি ও সাইয়্যেদ আমির হোসেন কাজিজাদে হাশেমি।

আগামী ১৮ জুন ইরানে প্রেসিডেনশিয়াল নির্বাচন। তার ঠিক আগে রীতিমতো আলোড়ন শুরু হয়েছে ইরানের রাজনৈতিক মহলে। অতি সম্প্রতি দেশের সাংসদদের সঙ্গে একটি ভার্চুয়াল বৈঠক করেন সর্বোচ্চ নেতা আয়তুল্লা আল খামেনি। সেখানে তিনি জানিয়ে দেন, সম্প্রতি নির্বাচনে অংশগ্রহণ বিষয়ে গার্জিয়ান কাউন্সিল যে মতামত দিয়েছে, তিনি তা সমর্থন করেন। এর ফলে বেশ কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি নির্বাচনে লড়তে পারবেন না।

ইরানের আইন অনুযায়ী নির্বাচনের দিন যাদের বয়স ১৮ বছর পূর্ণ হয় তারাই ভোট দিতে পারবে। ইরানের এবারের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ভোটার সংখ্যা হচ্ছে পাঁচ কোটি ৯৩ লাখ ১০ হাজার ৩০৭ জন। এ তথ্য জানিয়েছেন ইরানের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জাতীয় নির্বাচন পরিচালনা বিভাগের মুখপাত্র সাইয়্যেদ ইসমাইল মুসাভি।

মুসাভি বলেছেন, ইরানে আগামী ১৮ জুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের পাশাপাশি শহর ও গ্রাম পরিষদের মূল নির্বাচন এবং জাতীয় সংসদ ও বিশেষজ্ঞ পরিষদের উপনির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। এরইমধ্যে চারটি নির্বাচনের জন্যই ব্যালট পেপার ছাপানোর কাজ সম্পন্ন হয়েছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্বাচন পরিচালনা বিভাগের মুখপাত্র আরও জানিয়েছেন, এবার শহর পরিষদ বা সিটি কাউন্সিল নির্বাচনে ২৪টি শহরে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন ব্যবহার করা হবে। ২৪টি প্রদেশের কেন্দ্রীয় শহরকে এ জন্য নির্বাচন করা হয়েছে। তবে রাজধানী তেহরানে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন ব্যবহার করা হবে না।

চারটি নির্বাচনেরই ভোটগ্রহণ হবে আগামী ‌১৮ জুন। এরইমধ্যে দেশজুড়ে নির্বাচনী প্রচারণা জমে উঠেছে।ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরানের ১৩ তম প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য চূড়ান্তভাবে মনোনীত সাত প্রার্থী হলেন, সাইয়্যেদ ইব্রাহিম রায়িসি, মোহসেন রেজায়ি, মোহসেন মেহের আলীজাদে, সাঈদ জালিলি, আলী রেজা যাকানি, আব্দুন নাসের হেম্মাতি ও সাইয়্যেদ আমির হোসেন কাজিজাদে হাশেমি।

রিপ্লাই দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here