আন্তর্জাতিক সংবাদ: যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়ায় আবার শুরু হচ্ছে রাত্রীকালীন কারফিউ। দেশটিতে এরই মধ্যে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটি ২৪ লাখ ৫০ হাজারের বেশি মানুষ আর প্রাণ হারিয়েছে ২ লাখ ৫৫ হাজারের বেশি।

যুক্তরাষ্ট্রের পশ্চিমের এই প্রদেশেই এখন সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা, যা আগস্টের পরিস্থিতির থেকেও ভয়াবহ বলে জানিয়েছে লস এঞ্জেলস টাইমস। যুক্তরাষ্ট্রে প্রতিদিন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারাচ্ছে ২০০০ এর বেশি মানুষ। সেটাই বিশ্বের সবগুলো দেশের মধ্যে সর্বোচ্চ।

শুক্রবার একদিনেই সেখানে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয় ১ লাখ ৮৭ হাজার জন। সেটা এখন পর্যন্ত একদিনে আক্রান্তের সংখ্যার দিক থেকে সর্বোচ্চ। করোনাসংক্রমণ ঠেকাতে বেশ কিছু প্রদেশে মাস্ক বাধ্যতামূলক করা হয়েছে ও বেশ কিছু নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। টেক্সাসের এল পাসো শহরে মর্গের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ন্যাশনাল গার্ডকে দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে।

সংক্রমণ এড়াতে ২৬ নভেম্বর থ্যাংকসগিভিংয়ের ছুটিতে কোনো সফর না করার আহ্বান জানিয়েছে সেন্টারস ফর ডিজিজি কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন। যুক্তরাষ্ট্রে থ্যাংকসগিভিং সপ্তাহে সবচেয়ে বেশি সফর হয়ে থাকে। গত বছর এই ছুটিকে ঘিরে ২ কোটি ৬০ লাখ মানুষ এয়ারপোর্ট ব্যবহার করেছিলো।

গত সপ্তাহে ক্যালিফোর্নিয়ায় এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ১০ লাখ মানুষ। টেক্সাসের পরে তা দ্বিতীয়। স্থানীয় সময় শনিবার থেকে শুরু হওয়া এই কারফিউ চলবে আগামী ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। রাত১০ টা থেকে সকাল ৫টা পর্যন্ত চলবে কারফিউ। এই সময়ে খাবার নিয়ে যাওয়া বা বাইরে ডেলিভারী দেওয়ার কাজ করতে পারবে রেস্টুরেন্টগুলো।

যুক্তরাষ্ট্রের এই জনবহুল প্রদেশে ৪ কোটি মানুষের বাস। ক্যালিফোর্নিয়ার ৫৮টি কাউন্টির ৪১টিতেই ঘরে থাকার আদেশ বলবৎ হবে। গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়ে করোনাভাইরাস। বর্তমানে সারাবিশ্বে ৫ কোটি ৮৪ লাখ মানুষ এই ভাইরাসে আক্রান্ত, প্রাণ হারিয়েছে ১৩ লাখ ৮৬ হাজারের বেশি।

ডেস্ক নিউজ…

রিপ্লাই দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here