বিনোদন সংবাদ: দেশের চলচ্চিত্র অঙ্গন যখন ঘুরে দাঁড়ানোর সম্ভাবনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। ঠিক সেই সময় করোনার থাবায় সব থেমে যায়। দীর্ঘ ৭ মাস সিনেমা হল বন্ধ থাকার পর সম্প্রতি খুলেছে। ‘সাহসী হিরো আলম’ নামে ছবিটি মুক্তি পায়। তবে তা দর্শক গ্রহণ করেনি। বর্তমানে যেসব সিনেমা হল চালু আছে সেগুলোতে পুরোনো ছবি চালানো হচ্ছে। কিন্তু সেই ছবিগুলো দর্শক পাচ্ছে না।

দেশীয় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো করোনাকালীন এই সময়ে নতুন ছবি মুক্তি দিতে নারাজ। এই সময়কে কাজে লাগিয়ে সিনেমা হল মালিক প্রদর্শকের একটি অংশ পুরোনো ইচ্ছে অনুযায়ী দেশের সিনেমা হলে হিন্দি ভাষার বা বলিউডের ছবি চালানোর প্রস্তাব দিয়েছেন।
বাংলাদেশ হল মালিক সমিতির নেতাসহ অন্যান্যরা তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদের সঙ্গে এক বৈঠকে বলিউডের দশটি সিনেমা চালানোর প্রস্তাব দিয়েছেন৷ তথ্যমন্ত্রী হল মালিক সমিতিকে সংশ্লিষ্ট বিষয়ে একটি লিখিত প্রস্তাব দিতে বলেছেন৷ লিখিত পাওয়ার পর মন্ত্রণালয় থেকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেওয়া হবে বলে জানা গেছে৷ তবে সিনেমাগুলো ভারতের সঙ্গে একযোগে বাংলাদেশে মুক্তি পাবে নাকি বলিউডের পুরোনো সিনেমা চালানো হবে তা এখনো চূড়ান্ত হয়নি৷ লিখিত পাওয়ার পর মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে আলোচনা করে তা নির্ধারণ করবে৷ সিনেমা চালুর দিন তারিখও সেসময় নির্ধারিত হবে৷ এমনটা সূত্রমতে জানাগেছে..

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ চলচিত্র প্রযোজক ও পরিবেশ সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু৷ তিনি বলেন, বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত হয়নি৷ লিখিত দেওয়ার পর মন্ত্রণালয় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত দেবে৷
চলচ্চিত্র প্রদর্শক সমিতির সহ-সভাপতি মিয়া আলাউদ্দিন বলেছেন, ভারতের ছবি আনার বিষয়ে আমরা হল মালিকরা একমত হয়েছি৷ তবে পুরোনো সিনেমা নয়, আমরা চাই বলিউড ও কলকাতার সিনেমা সেখানে যেদিন মুক্তি পাবে, আমাদের এখানেও একই দিনে মুক্তি পাবে৷ আমরা এখন সেই চেষ্টাই করছি৷

মধুমিতা হলের কর্ণধার ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ বলেন, এটা অনেক আগেই করা উচিত ছিল৷ দেরি হয়ে গেছে৷ তারপরও সময় ফুরিয়ে যায়নি৷ যত দ্রুত সম্ভব এটা করতেই হবে৷ তবে পুরনো হিন্দি ছবি দিয়ে হলে দর্শক আনা সম্ভব নয়৷ খুব বেশি হলে মাসখানেক আগে মুক্তি পাওয়া হিন্দি ছবি আনতে হবে৷ হল বাঁচাতে ভালো সিনেমার বিকল্প নেই৷
উল্লেখ্য, দক্ষিণ এশিয়ার আঞ্চলিক মুক্তবাণিজ্য চুক্তির (সাফটা) আওতায় সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে চলচ্চিত্র বিনিময়ের সুযোগ থাকলেও দেশের প্রেক্ষাগৃহে হিন্দি সিনেমা সবশেষ ২০১৫ সালে দেখানো হয়েছিল৷ সালমান খান অভিনীত ‘ওয়ান্টেড’ ছবিটি চালানো হয়েছিল তখন৷ দেশীয় শিল্পী কলাকুশলীদের আন্দোলনের মুখে এদেশে হিন্দি ছবির প্রদর্শন বন্ধ হয়ে যায়।

ডেস্ক নিউজ…

মন্তব্য করুন

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন