ষ্টাফ রিপোর্টার মো: রুবেল  চট্টগ্রামের আকবরশাহ থানাস্থ নিউ মনছুরাবাদ হাসেম সওদাগর এর বাড়ির চারতলা ভবনের ২য় তলায় একটি সাবলেট রুমে ভাড়া থাকতো রাশেদা আক্তার পারভিন (২৮) আবুল বাশার (৩৫) ও তাদের একমাত্র ছেলে শাহাদাত (৯)। গত ১১নভেম্বর রোজ বুধবার শিশু শাহাদাতের ঝুলন্ত মৃত দেহ জানালার গ্রিল থেকে উদ্ধার করে আকবরশাহ থানা পুলিশ। ঘটনাস্থলে সরেজমিনে গিয়ে দেশী টুয়েন্টিফোর জানতে পারে, রাশেদা (মা) পেশায় একজন পোশাক শ্রমিক এবং বাবা আবুল বাশার ট্রাক চালক গত দেড় মাস আগে এই বিল্ডিং এর ২য় তলায় সাবলেট ভাড়া নেয় এবং ছেলের ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে দুজনেই কর্ম করছে। মা রাশেদা জানায় শাহাদাত আমার আগের সংসারের ছেলে আমার ১ম স্বামী ইউছুফ আমাকে ১মাসের ছেলেসহ ঘর থেকে বের করে দিয়েছে, সে নেশা করত এবং মাদক ব্যবসায় জড়িত ছিলো বর্তমানে তার সাথে আমার কোনো যোগাযোগ নেই, এইখানে আসার আগে আমরা মাস্টার লাইনে থাকতাম সে ছেলেকে দেখার জন্য প্রায় রাস্তায় দাড়িয়ে থাকত ছেলেকে কিছু কিনে দিতো, এই বাসা সে চিনে কিনা জানিনা, আমি এইখানে নতুন ভাড়া ঘর নিয়েছি এইখানে আমাদের পরিচিত তেমন কেউ নেই, আমার ছেলে নিজে থেকেই খাওয়া-দাওয়া করতে পারে তবুও আমি পাশের বাসার ভাবিকে আমার ছেলের প্রতি খেয়াল রাখার জন্য মাসে ১ (এক) হাজার টাকা করে দেয়ার কথা বলেছি, কিন্তু ওরা আমার ছেলের খেয়াল রাখেনি, আমার ধারনা ওরা হয়ত আমার ছেলের সাথে ঘটে যাওয়া ঘটনায় জড়িত থাকতে পারে, ঘটনার আগের দিন আমার ছেলে আমাকে বলেছিলো সে নাকি পাশের বাসায় গিয়েছিলো তাকে বাসার আঙ্কেল বাসা থেকে বের করে দিয়েছে এবং আঙ্কেলকে সে ভয় পায়, কান্না জর্জড়িত কন্ঠে ছেলের মনে কিসের ভয় ছিলো তা জানাতে না পারার দু:ক্ষে শোকাহত মা। এইদিকে প্রতিবেশী ও স্থানীয় লোকদের থেকে দেশী টুয়েন্টিফোর  জানতে পারে, শিশু শাহাদাত খুব শান্ত প্রকৃতির এবং সে টিভি দেখতে পছন্দ করত, সে টিভিতে মটু-পাতলু কার্টুনের পাশাপাশি সিআইডি ও ক্রাইম পেট্রোল সিরিয়াল দেখত। উল্লেখ্য যে পাশের বাসার প্রতিবেশী এই কথার প্রেক্ষিতে বলে সিআইডি বা ক্রাইম পেট্রোল দেখার কারনে হয়ত শাহাদাত দুষ্টমির ছলে দূর্ঘটনার শিকার হয়েছে। কিন্তু মা রাশেদা ও স্বজনেরা এই কথা মানতে নারাজ। এই বিষয়ে আকবরশাহ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহির হোসেন দেশী টুয়েন্টিফোর-কে বলেন সিআইডির ক্রাইম ইউনিট আলামত সংগ্রহ করেছে এবং প্রাথমিক ভাবে হত্যাকান্ড বলেই মনে করছেন, ময়না তদন্ত রিপোর্ট আসল তথ্য ও বিস্তারিত বলা যাবে। এই ঘটনায় প্রাথমিকভাবে পুলিশ বেশ কয়েকজনকে জিঙ্গাসাবাদ করেছেন। স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সংরক্ষিত আসনে কাউন্সিলর পদপ্রার্থী তসলিমা নুরজাহান বেগম রুবি এই ঘটনায় শোক জানিয়ে দোসীদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় এনে সর্বোচ্চ শাস্তি কার্যকর করার দাবী জানান।

মন্তব্য করুন

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন