করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর অতিরিক্ত সতর্কতা অবলম্বন ও সুচিকিৎসার জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, করোনা শনাক্তের ২৪ ঘণ্টা পার হওয়ার আগেই প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পকে মেরিল্যান্ডের ওয়াল্টার রিড ন্যাশনাল মিলিটারি মেডিকেল সেন্টারে নেওয়া হয়েছে। ওয়াশিংটনে হোয়াইট হাউস কর্মকর্তারা বলছেন, সতর্কতা হিসেবেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে। প্রেসিডেন্টের হেলিকপ্টার মেরিন ওয়ান হোয়াইট হাউস প্রাঙ্গণ থেকে তাকে নিয়ে হাসপাতালের উদ্দেশে রওনা হয়। এর আগে, করোনা ভাইরাসের ‘উপসর্গ’ দেখা দেয়ায় বুধবার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাতে ৭৪ বছর বয়সের ডোনাল্ড ট্রাম্প জানান, তিনি এবং তাঁর স্ত্রী মেলানিয়া কোয়ারেন্টাইনে গেছেন।

হোয়াইট হাউস কর্মকর্তারা বলছেন, প্রেসিডেন্টকে সতর্কতা হিসেবে ওষুধ দেওয়ার পর তিনি ক্লান্ত কিন্তু ভালো মেজাজে ছিলেন। এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউস জানায়, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ভালো আছেন, কিছু হাল্কা উপসর্গ দেখা যাচ্ছে এবং তিনি সারা দিন কাজ করেছেন।

আমেরিকার গণমাধ্যম সিবিএস নিউজ জানায়, ডোনাল্ড ট্রাম্পের উপসর্গের মধ্যে রয়েছে হাল্কা জ্বর। বিবৃতিতে বলা হয়, ব্যাপক সতর্কতার জন্য এবং তার ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী, প্রেসিডেন্ট আগামী কয়েক দিন ওয়াল্টার রিডের প্রেসিডেন্সিয়াল অফিস থেকে কাজ করবেন। মার্কিন সংবিধান অনুযায়ী, প্রেসিডেন্ট অসুস্থতার কারণে কাজ না করতে পারলে তিনি তার দায়িত্ব ভাইস প্রেসিডেন্টের কাছে ন্যস্ত করতে পারেন। অর্থাৎ, ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স সাময়িকভাবে অস্থায়ী রাষ্ট্রপতি হবেন। এদিকে, মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্স এবং তার স্ত্রী করোনা রেজাল্ট নেগেটিভ এসেছে। কোভিড পরীক্ষা করালে দু’জনেরই নেগেটিভ ফলাফল এসেছে বলে জানায় পেন্সের মুখপাত্র।

নিয়মিত করোনা পরীক্ষা করার মাইক পেন্স। মার্কিন ট্রেজারি সেক্রেটারি স্টিভ মানুচিনের কোভিড ঊনিশ পরীক্ষার ফলাফলও নেগেটিভ আসে।

মন্তব্য করুন

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন