আন্দোলনরত সৌদিপ্রবাসীদের উদ্দেশ্যে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, তিন মাস ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর জন্য আবেদন করা হয়েছে। সরকার কাজ করছে। বিমান প্রস্তুত আছে। ল্যান্ডিং পারমিশন দিলে যাদের আগে ডেট আছে তাদের আগে নেয়া হবে। ধৈর্য ধরেন আপনারা। কারণ সৌদি বিশৃঙ্খলা পছন্দ করে না। আন্দোলনকারীদের ভিসা বাতিল করতে পারে। আগেও বাতিল করার ঘটনা ঘটেছে।
বুধবার দুপুরে বিমানমন্ত্রী ও প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক শেষে সচিবালয়ের নিজ দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে ব্রিফিংকালে তিনি এ কথা বলেন।
আন্তঃমন্ত্রণালয়ের বৈঠকে সিদ্ধান্তের কথা জানিয়ে তিনি আরও বলেন, সৌদি আরব যত ফ্লাইট চাইবে বেবিচক তত ফ্লাইট চালানোর অনুমতি দেবে। অপরদিকে সৌদ আরব বাংলাদেশ বিমানকে অনুমতি দিলে তারা নিয়মিত ফ্লাইট চালু করবে।
এসময় বাংলাদেশি সৌদি প্রবাসীদের সেখানে না যেতে পারার ব্যাপারে সৃষ্ট সমস্যা সমাধানে দুই থেকে তিন দিন সময় চেয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন।
তিনি আরো বলেন, সৌদিতে শ্রমিক যাওয়া ৬-৭ বছর বন্ধ ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আবার সেটা চালু করেছেন। তাই বাজে ধারণা যেন সৃষ্টি না হয়। প্রবাসীদের পক্ষ থেকে দরখাস্ত এসেছে। সেটা এক রাজনৈতিক ব্যক্তির কাছ থেকে। প্রবাসীরা তৃতীয় পক্ষ নেবেন না। সরাসরি আসবেন। যাদের যাওয়া অসুবিধা হয়েছে তাদের বিমান ভাড়ার বিষয়ে বিবেচনা করা হবে।
ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, সৌদি সরকার ৫৪ হাজার রোহিঙ্গাদের নিয়েছিল। প্রথম বলেছিল ৪৬২ জন জেলে আছে নিয়ে যাও। আমরা যাচাই-বাছাই করবো। যদি বাংলাদেশের নাগরিক হয় নিয়ে আসবো। রোহিঙ্গাদের ব্যাপারে পররাষ্ট্র সচিবের নেতৃত্বে কমিটি নিয়োগ দেয়া হয়েছে। আলাপ আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছি। রোহিঙ্গাদের না আনলে এ দেশ থেকে আর শ্রমিক না নেয়ার কথা বলেছে সৌদি আরব। তবে এটাকে আমরা হুমকি মনে করি না।

মন্তব্য করুন

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন