ভারতে ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা গেরেছন ১ হাজার ১২৯ জন, শনাক্ত ৪৫ হাজার ৭২০ জন

দেশী টুয়েন্টিফোরকে ছড়িয়ে দিন:

সব রেকর্ড ভেঙে একদিনে এবার সর্বোচ্চ করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত ও মৃত্যু হলো ভারতে। দেশটিতে মাত্র ২৪ ঘণ্টাতেই শনাক্ত হয়েছে ৪৫ হাজার ৭২০ জন এবং মারা গেরেছন ১ হাজার ১২৯ জন।

বৃহস্পতিবার (২৩ জুলাই) সকালে সরকারি তথ্যের বরাতে এনডিটিভির প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।

ভারতজুড়ে এখন পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১২ লাখ ছাড়িয়ে গেছে। মোট ১২ লাখ ৩৮ হাজার ৬৩৫ জনের শরীরে এ ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মৃত্যু হয়েছে ২৯ হাজার ৮৬১ জনের। এছাড়া সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭ লাখ ৮২ হাজার ৬০৭ জন।

বুধবার সর্বোচ্চ সংখ্যক নমুনা পরীক্ষা হয় ভারতে। এদিন সংগ্রহ করা হয় ৩ লাখ ৫০ হাজার ৮২৩ জনের নমুনা। কর্তৃপক্ষ বলছে, সবমিলিয়ে ভারতে দেড় কোটির বেশি মানুষের নমুনা পরীক্ষা হয়েছে।

করোনার সংক্রমণে ভারতের সবচেয়ে বিধ্বস্ত রাজ্য মহারাষ্ট্র। এ রাজ্যে সর্বোচ্চ সংখ্যক করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে। এরপর রয়েছে তামিল নাড়ু এবং দিল্লি।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী এ পর্যন্ত ২১৫টি দেশে ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি যুক্তরাষ্ট্রে। বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩৯ লাখ ৬৯ হাজার ৭৮৬ জন। মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৪৩ হাজার ১৭৮ জনের।

যুক্তরাষ্ট্রের পর করোনায় বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ব্রাজিল। আক্রান্ত ও মৃত্যু উভয় বিবেচনায় দ্বিতীয় স্থানে থাকা লাতিন আমেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ২২ লাখ ২৭ হাজার ৫১৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৮২ হাজার ৭৭১ জনের।

ইউরোপের দেশ যুক্তরাজ্য মৃত্যু বিবেচনায় রয়েছে তৃতীয় স্থানে, তবে আক্রান্তের দিক থেকে দেশটির অবস্থান নবম। সকাল পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ২ লাখ ৯৭ হাজার ৯৫২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৪৫ হাজার ৫৮৬ জনের।

মৃত্যু বিবেচনায় চতুর্থ স্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিবেশী মেক্সিকো, তবে আক্রান্ত বিবেচনায় দেশটির অবস্থান সাত নম্বরে। মেক্সিকোতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩ লাখ ৬২ হাজার ২৭৪ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৪১ হাজার ১৯০ জনের।

ইউরোপের আরেক দেশ ইতালি মৃত্যু বিবেচনায় আছে পঞ্চম স্থানে, তবে আক্রান্ত বিবেচনায় দেশটির অবস্থান ১৪ নম্বরে। এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছেন ২ লাখ ৪৫ হাজার ৩২ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ৩৫ হাজার ৮২ জনের।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যে আক্রান্ত বিবেচনায় তৃতীয় স্থানে ভারত। আর মৃত্যু বিবেচনায় রয়েছে সাত নম্বরে। দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১১ লাখ ৯৩ হাজার ৭৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২৮ হাজার ৭৩২ জনের।

বাংলাদেশের স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, দেশে বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় ২ হাজার ৭৪৪ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এবং মৃত্যু হয়েছে আরও ৪২ জনের। সবমিলিয়ে বুধবার সকাল ৮টা পর্যন্ত দেশে ২ লাখ ১৩ হাজার ২৫৪ জনের দেহে করোনাভাইরাসের শনাক্ত হয়েছে। এছাড়া মোট মৃত্যু হয়েছে ২ হাজার ৭৫১ জনের। আর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ লাখ ১৭ হাজার ২০২ জন।


দেশী টুয়েন্টিফোরকে ছড়িয়ে দিন:

রিপ্লাই/মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন
এখানে আপনার নাম লিখুন