লাদাখ ভারত-চীন সীমান্তে ফের দুই দেশের সেনাসদস্যদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। সোমবার রাতে গলওয়ান উপত্যকায় চীনা সেনাদের হামলায় প্রাণ হারিয়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনীর এক কর্নেল এবং দুইজন সৈন্য। খবর এনডিটিভির।

তবে ভারতীয় সেনা সূত্রের বরাতে জানা গেছে, সংঘর্ষে গোলাগুলি হয়নি। পাথর এবং রড নিয়ে মারামারিতে তিন থেকে চার জন চীন সেনা ও নিহত হয়েছে।

সোমবারই দুই পক্ষের ব্রিগেডিয়ার পর্যায়ের বৈঠক শুরু হয়েছিল। তারপরই এই হামলার ঘটনা ঘটে।
ভারতীয় সেনাবাহিনী মঙ্গলবার দুপুরে এক বিবৃতিতে জানায়, গলওয়ান উপত্যকায় উত্তেজনা প্রশমন প্রক্রিয়ার চলাকালীনই গতকাল সোমবার রাতে সংঘর্ষ এবং মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এই ঘটনায় ভারতীয় সেনার এক অফিসার এবং দুই সৈন্যের মৃত্যু হয়েছে। দুই পক্ষের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বৈঠক করছেন।
পরে মঙ্গলবার ভারত সরকারের এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, উভয়পক্ষের সিনিয়র সামরিক প্রতিনিধিরা বর্তমানে এই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বৈঠক করছেন।

এদিকে মঙ্গলবার কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং পূর্ব লাদাখের সাম্প্রতিক ঘটনাবলি নিয়ে তিন সেনাবাহিনীর প্রধান ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এস জয়শঙ্কর এবং চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াতের সঙ্গে বৈঠক করেন।
অন্যদিকে বেইজিং পাল্টা অভিযোগ জানিয়েছে যে, ভারতীয় সেনাসদস্যরাই সীমান্ত পেরিয়ে ‘চীনা সেনাদের আক্রমণ’ করে। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ঝাও লিজিয়ান বেজিংয়ে সাংবাদিকদের বলেন, সোমবার দুইবার ভারতীয় সেনারা সীমান্ত অতিক্রম করে এবং চীনা সেনাদের উস্কানি দেয় ও আক্রমণ করে, এরপরই উভয়পক্ষের সীমান্ত বাহিনীর মধ্যে মারাত্মক সংঘর্ষ শুরু হয়।

উল্লেখ্য, ভারত এবং চীনের মধ্যে প্রায় ৩,৫০০ কিলোমিটার দীর্ঘ সীমান্ত এলাকা রয়েছে। ইদানিং সেই সীমান্ত এলাকাতেই দুই দেশের সেনার মধ্যে উত্তেজনা তৈরি হয়েছে। এর আগে ১৯৭৫ সালে অরুণাচল প্রদেশের তুলুং লাতে এমনই একটি সংঘর্ষে ৪ ভারতীয় সেনাসদস্য প্রাণ হারিয়েছিলেন।

রিপ্লাই দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here