চীনের সেনাবাহিনীকে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। ‘জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে’ সেনাবাহিনীকে মহড়া শুরুর নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।
মঙ্গলবার রাজধানী বেজিংয়ে পিপলস লিবারেশন আর্মি ও ‘পিপলস আর্মড পুলিশ ফোর্সের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন চীনের প্রেসিডেন্ট।
দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন জানায়, এসময় শি জিনপিং বলেন, ‘জাতীয় সার্বভৌমত্ব রক্ষা ও যেকোনো জটিল পরিস্থিতিকে সঠিকভাবে মোকাবিলা করতে হবে। সেনাবাহিনীকে এখন থেকে প্রস্তুতি নিতে হবে।’
যদিও কাদের বিরুদ্ধে এই যুদ্ধ নিয়ে তা নিয়ে স্পষ্ট কোনও ইঙ্গিত দেয়া হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে সম্প্রতি চীন-ভারত সীমান্তে উত্তেজনার পর এমন ঘোষণা এসেছে।
ভারতীয় গণমাধ্যমগুলোর দাবি, আগের প্রতিশ্রুতি ভেঙে ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করছে চীনের সেনারা। পূর্ব লাদাখের লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কনট্রোলের (এলএসি) আশপাশের এলাকায় এরইমধ্যে দুই থেকে আড়াই হাজার সেনা মোতায়েন করেছে চীন। একই সঙ্গে ওই এলাকায় বাড়ছে চীনা সেনাদের অস্থায়ী ছাউনির সংখ্যা।
এমন হুমকির মুখে নড়েচড়ে বসেছে ভারতও। এলএসিতে কোনও ধরনের পরিবর্তনের চেষ্টা মেনে নেয়া হবে না বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে নয়াদিল্লি। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় চিফ অব ডিফেন্স স্টাফ জেনারেল বিপিন রাওয়াত এবং তিন বাহিনীর প্রধানের সঙ্গে উচ্চ পর্যায়ের বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদে।
বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালও। এ ছাড়া পরাষ্ট্রসচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলার সঙ্গেও আলাদা বৈঠক করেন প্রধানমন্ত্রী।
ধারনা করা হচ্ছে, ২০১৭ সালের ডোকলামের মতো আবারও বড় সংঘাতের দিকে এগোচ্ছে দেশদুটি।

মন্তব্য করুন

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন