করোনার কারণে জাতীয় ঈদগাহ ময়দানের পরিবর্তে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। নামাজ শেষে মোনাজাতে দেশ ও জাতির মঙ্গল কামনা করা হয়েছে। পাশাপাশি সম্প্রতি বৈশ্বিক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও নিহতদের জন্য দোয়া করা হয়েছে।
সোমবার সকাল ৭টায় প্রথম জামাত শুরু হয়। নামাজ শেষে খুতবা পেশ করা হয়। এর পর অনুষ্ঠিত হয় দোয়া ও মোনাজাত। প্রধান জামাতে ইমামতি করেন বায়তুল মোকাররমের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মাওলানা মিজানুর রহমান। করোনা পরিস্থিতির কারণে নিরাপদ শারীরিক দূরত্ব বজায় রেখে মুসল্লিরা নামাজ আদায় করেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদ জামাত শেষে কোলাকুলি ও হাত মেলাননি মুসল্লিরা।
বায়তুল মোকাররমে মোট পাঁচটি ঈদের জামাত হবে। এর মধ্যে সকাল সাতটার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ৮টা ও ৯টার জামাত শেষ হয়েছে। এরপর ১০টা ও পৌনে ১১টায় জামাত হবে।
দেশের সকল মসজিদের মতো বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদেও ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায়ের ক্ষেত্রে ডিএমপি ১৪ দফা এবং ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় ১৩ দফা নির্দেশনা আরোপ করেছে।
নির্দেশনায় বলা হয়েছে, বাসা থেকে অজু করে আসতে হবে, নামাজের সময় মসজিদে গালিচা বিছানো যাবে না; নামাজের আগে পুরো মসজিদ জীবাণুনাশক দিয়ে পরিষ্কার করতে হবে; জায়নামাজ নিয়ে আসতে হবে মুসল্লিদের; সবাইকে মাস্ক পরতে হবে; মসজিদে প্রবেশের আগে সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে; মসজিদে সংরক্ষিত জায়নামাজ ও টুপি ব্যবহার করা যাবে না; নামাজের কাতারে দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে ইত্যাদি।

রিপ্লাই দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here