কোভিড-১৯ করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের আক্রান্তদের মধ্যে নতুন একটি সমস্যা গুরুতর হয়ে উঠেছে। গুরুতর অসুস্থদের মধ্যে কমপক্ষে ৩০ শতাংশের দেহে রক্ত জমাট বেঁধে যাচ্ছে। কখনো কখনো রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার এই বিষয়টি অনেক ভয়াবহ আকার ধারণ করছে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা সম্প্রতি এ বিষয়ে সতর্কবাণী উচ্চারণ করেছেন।
ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, করোনায় আক্রান্ত হওয়ার পর রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার কারণে সম্প্রতি অনেক মানুষের মৃত্যু হয়েছে। চিকিৎসাবিজ্ঞানের পরিভাষায়, রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়াকে বলা হয় থ্রম্বোসিস।

নতুন করোনাভাইরাস মানুষের শ্বাসতন্ত্রকে মারাত্মকভাবে আক্রমণ করে থাকে। আর শ্বাসতন্ত্রের জটিল সমস্যা থেকেই রক্ত জমাট বেঁধে যাচ্ছে বলে মনে করা হচ্ছে।
করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষের মধ্যে নানা জটিলতা দেখা দিচ্ছে। এর মধ্যে কিছু জটিলতা মৃত্যুর কারণ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। ঠিক তেমনই একটি স্বাস্থ্য জটিলতা হলো রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়া।
গত মার্চে পুরো বিশ্বে নতুন করোনাভাইরাস ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়তে থাকে। রোগীর সংখ্যা বাড়তে থাকার সঙ্গে সঙ্গেই বাড়তে থাকে রোগীদের দেহে রক্ত জমাট বাঁধতে থাকার ঘটনাও। কিছু ক্ষেত্রে কোনো কোনো রোগীর শ্বাসতন্ত্রের ভেতরেও রক্ত জমাট বাঁধতে দেখা গেছে।
লন্ডনের কিংস কলেজ হসপিটালের অধ্যাপক রুপেন আরিয়া বলছেন, ‘গত কয়েক সপ্তাহের তথ্য বিশ্লেষণের পর আমি নিশ্চিত যে, রক্ত জমাট বাঁধার বিষয়টি একটি গুরুতর সমস্যা হয়ে দেখা দিয়েছে। গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়া করোনা রোগীদের মধ্যে, যাদের আইসিইউ সুবিধাসহ বিশেষ যত্নের প্রয়োজন হচ্ছে, তাদের মধ্যে এই সমস্যাটি বেশি দেখা দিচ্ছে। অনেকের ফুসফুসে রক্ত জমাট বেঁধে যাচ্ছে।’
বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, ইউরোপে এমন ঘটনা ঘটছে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়া রোগীদের ৩০ শতাংশের ক্ষেত্রে। তবে রুপেন আরিয়া মনে করেন, এই হার আরও বেশিও হতে পারে।

মন্তব্য করুন

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন