করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে সম্মিলিত উদ্যোগ চান প্রধানমন্ত্রী

শেয়ার করুন:


বিশ্ব সম্ভবত গত ১০০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে বড় সংকট মোকাবিলা করছে। এজন্য আমাদের উচিত হবে একসাথে এ সংকট মোকাবিলা করা। আমাদের দরকার প্রত্যেক সমাজ থেকে সম্মিলিত দায়িত্ব ও অংশীদারিত্বের উদ্যোগ নেয়া। বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

আজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরাম (ডব্লিউইএফ) আয়োজিত এক ভার্চুয়াল সম্মেলনে সূচনা বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাস ও এর অর্থনৈতিক প্রভাব মোকাবিলায় প্রত্যেক সমাজ থেকে সম্মিলিত দায়িত্ব ও অংশীদারিত্বের উদ্যোগ নিতে হবে। এ মহামারি আর কত দিন থাকবে তা আমাদের জানা নেই। ইতোমধ্যেই অর্থনীতিতে এর প্রভাব পড়তে শুরু করেছে। কিন্তু আমাদের দরকার অর্থনীতি, ব্যবসা ও সমাজকে আগের লাইনে ফেরানো। মানুষকে ট্রমা ও ভয় কাটিয়ে উঠতে সহায়তা করা এবং অত্যাবশ্যক ক্ষেত্রগুলোকে পুনরুদ্ধার করা। করোনার বিরুদ্ধে জয়ী হতে হলে সম্মিলিত উদ্যোগ দরকার।

শেখ হাসিনা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনের সাথে ইতোমধ্যেই বিশ্ব লড়াই করছে। এখন এই করোনাভাইরাস আমাদের অস্তিত্বকে চ্যালেঞ্জ করছে। বিশ্বায়নের এই যুগে বিশ্বের অন্যান্য দেশ থেকে এক দেশকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলা সম্ভব নয় এবং বিচ্ছিন্নতার নীতি আর কাজ করবে না। এই জটিল পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে যাওয়া বিশ্বে বিভিন্ন ধরনের উদ্যোগ নেয়া দরকার উল্লেখ প্রধানমন্ত্রী পাঁচটি উদ্যোগের কথা তুলে ধরেন।

বিশ্বকে মানবকল্যাণ, বৈষম্য রোধ, দরিদ্রদের সহায়তা এবং করোনার আগের স্তরে অর্থনীতিকে ফিরিয়ে নিতে নতুন কিছু ভাবতে হবে বলে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কারণ, সমাজে দারিদ্র্য ও বৈষম্য দ্রুত বাড়বে। গত এক দশকে আমরা গরিব জনগোষ্ঠীর অর্ধেককে দরিদ্রতা থেকে তুলে এনেছিলাম। তাদের অনেকে হয়তো এখন আবার আগের জায়গায় ফিরে যাবে।

তিনি বলেন, ৪১ দিনের ছুটির কারণে দেশের প্রায় তিন-চতুর্থাংশ লকডাউন হয়ে পড়েছে। তবে সরকারি পদক্ষেপের কারণে মৃত্যুর সংখ্যা এখনও কম রয়েছে। গত ৪৭ দিনে ১২৭ জন মারা গেছেন এবং ৪ হাজার ১৮৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

সম্মেলনে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের স্বাস্থ্য ও স্বাস্থ্যসেবা বিষয়ক প্রধান আরনাউড বার্নার্ট তাদের সংস্থার স্বাস্থ্যসেবার দিক থেকে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য তুলে ধরেন।

ভার্চুয়াল এই সম্মেলনে অংশ নেন রিজিয়নাল অ্যাকশন গ্রুপ ফর সাউথ এশিয়ার সদস্যরা। সবাই নিজেদের মতামত তুলে ধরেন।


শেয়ার করুন:

রিপ্লাই/মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন
এখানে আপনার নাম লিখুন