করোনায় আক্রান্ত মার্কিন রণতরির নাবিকেরা, একজনের মৃত্যু

শেয়ার করুন:


যুদ্ধবিমানবাহী মার্কিন রণতরি ইউএসএস থিওডোর রুজভেল্টের এক নাবিক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। মার্কিন নৌবাহিনী এক ঘোষণায় এ তথ্য জানিয়েছে। গতকাল সোমবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে এ কথা বলা হয়।

ইউএসএস থিওডোর রুজভেল্টে থাকা কোনো ব্যক্তি এই প্রথম করোনায় মারা গেলেন। মারা যাওয়া নাবিকের নাম এখন পর্যন্ত প্রকাশ করেনি মার্কিন নৌবাহিনী।

করোনা ‘পজিটিভ’ শনাক্ত হওয়ার পর ওই নাবিককে রণতরি থেকে সরিয়ে প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপ গুয়ামের একটি আইসোলেশন হাউসে নেওয়া হয়েছিল। ৯ এপ্রিল তাঁকে নিঃসাড় অবস্থায় পাওয়া যায়। ১৩ এপ্রিল তিনি মারা যান।

মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী মার্ক এসপার বলেছেন, করোনায় রণতরির প্রথম কোনো নাবিকের মৃত্যুতে তাঁর দপ্তর গভীরভাবে মর্মাহত। রণতরির সদস্য ও তাঁদের পরিবারের সুরক্ষায় তাঁরা অঙ্গীকারবদ্ধ।

ইউএসএস থিওডোর রুজভেল্ট এখন গুয়ামে অবস্থান করছে। রণতরির নাবিকদের ডাঙায় কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে।

রণতরিটির পাঁচ শতাধিক নাবিক করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন।

মার্কিন নৌবাহিনী বলেছে, রণতরির ৯২ শতাংশ ক্রুর করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে অন্তত ৬০০ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আর ৩ হাজার ৭২৪ জনের করোনা ‘নেগেটিভ’ এসেছে।

রণতরিটিতে চার হাজারের বেশি ক্রু অবস্থান করছিলেন।

রণতরিটির কমান্ডার ক্যাপ্টেন ব্রেট ক্রোজিয়ারকে চলতি মাসের শুরুর দিকে বরখাস্ত করা হয়।

রণতরিতে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে মার্কিন নৌবাহিনী যথেষ্ট পদক্ষেপ নিচ্ছে না বলে অভিযোগ করার পরই ক্যাপ্টেন ব্রেটকে বরখাস্ত করা হয়।

ইউএসএস থিওডোর রুজভেল্টে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ জানিয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের উদ্দেশে ক্যাপ্টেন ব্রেট একটি চিঠি লিখেছিলেন। চিঠিতে তিনি তাঁর রণতরিটিতে অবস্থানরত ব্যক্তিদের করোনায় মারা যাওয়ার হাত থেকে রক্ষায় দ্রুত পদক্ষেপ নিতে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানান।

ক্যাপ্টেন ব্রেটের চিঠিটি মার্কিন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্রের তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত নৌমন্ত্রী থমাস মোডলি তখন বলেছিলেন, কমান্ডার ব্রেট অত্যন্ত বাজে বিচারবুদ্ধির চর্চা করেছেন। গণমাধ্যমে চিঠি ফাঁসের অভিযোগে ক্যাপ্টেন ব্রেটকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ভারপ্রাপ্ত নৌমন্ত্রী বলেন, চিটিটি এমন ধারণা তৈরি করেছে যে মার্কিন নৌবাহিনী ক্যাপ্টেন ব্রেটের প্রশ্নের কোনো সাড়া দিচ্ছে না।

ক্যাপ্টেন ব্রেটকে বরখাস্ত করার বিষয়টি ব্যাপক সমালোচনার জন্ম দেয়। পরে ভারপ্রাপ্ত নৌমন্ত্রীর পদ থেকে থমাস মোডলি পদত্যাগ করেন।


শেয়ার করুন:

রিপ্লাই/মন্তব্য করুন

আপনার মন্তব্য লিখুন
এখানে আপনার নাম লিখুন