নভেল করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে সংক্রমণ এড়াতে আসছে পহেলা বৈশাখে নববর্ষের সব ধরনের অনুষ্ঠান স্থগিত করেছে সরকার।

তিন পার্বাত্য জেলার বৈসাবিসহ বাংলা নববর্ষের সব ধরনের অনুষ্ঠান স্থগিতের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বুধবার সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিবকে চিঠি পাঠিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

দেশের নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের প্রেক্ষিতে এবার নববর্ষে জনসমাগম করে কোনো অনুষ্ঠান করা যাবে না বলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মঙ্গলবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মাঠ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের নির্দেশনা দেন।

তিনি বলেন, “নববর্ষের অনুষ্ঠান আমি মনে করি ডিজিটাল পদ্ধতিতেই আপনারা করতে পারেন। সেখানে সবাই যথাযথ আকারে করুন। কিন্তু বিশাল জনসমাগম করে এই অনুষ্ঠান সারা বাংলাদেশে সম্পূর্ণ বন্ধ রাখতে হবে। এটা আমার বিশেষ অনুরোধ।”

আগামী ১৪ এপ্রিল শুরু হবে বাংলা ক্যালেন্ডারের নতুন বছর-বঙ্গাব্দ ১৪২৬। নতুন বছরে পুরনো সব জীর্ণতা মুছে যাবে- এই প্রত্যাশা নিয়ে প্রতি বছর নানা আয়োজনে বৈশাখের প্রথম দিনটি উদযাপন করে বাংলাদেশের মানুষ।

বর্ষবরণের এই উৎসবই বাঙালির সবচেয়ে বড় অসাম্প্রদায়িক উৎসব। বৈশাখের প্রথম সকালে চারুকলার যে ‘মঙ্গল শোভাযাত্রা’ হয়, তা এখন ইউনেস্কোর ‘ইনট্যানজিবল কালচারাল হেরিটেজ’।

মন্তব্য করুন

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন