পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট আজ বৃহস্পতিবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের ভাগ্য নির্ধারণ করবে। পানামা পেপারস কেলেঙ্কারিতে প্রধানমন্ত্রী ও তার পরিবারের সদস্যদের বিরুদ্ধে আনা দুর্নীতির অভিযোগের ওপর রুল জারি করা হলে ক্ষমতা থেকে সরে যেতে হতে পারে নওয়াজকে।

নওয়াজ শরিফের মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ অবশ্য দাবি করেছেন, তার বাবা উদ্বিগ্ন নন। তবে ক্ষমতাসীন মুসলিম লীগ অবশ্য তাদের নেতার ভাগ্য নিয়ে বেশ চিন্তিত। দলটির কাউন্সিলর থেকে শুরু করে আইনপ্রণেতা পর্যন্ত সবাই উদ্বিগ্ন যে, তাদের নেতা আজ সুপ্রিম কোর্টের কাছ থেকে পানামা পেপার্স কেলেঙ্কারি মামলায় ক্লিনচিট পাবেন কি না।

গত বছর পানামাভিত্তিক আইনি সহায়তা প্রতিষ্ঠান মোসাক ফনসেকার এক কোটিরও বেশি নথি ফাঁস হয়। এসব নথিতে ধনী ও ক্ষমতাধর ব্যক্তিরা কীভাবে কর ফাঁকি দিয়ে গোপন সম্পদের পাহাড় গড়ে তুলেছেন, তা বেরিয়ে আসে। এই তালিকায় চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং থেকে শুরু করে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফসহ বিশ্বের বহু প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বের নাম উঠে আসে।

ফাঁস হওয়া নথিতে দেখা গেছে, নওয়াজ শরিফের তিন ছেলেমেয়ে মোসাক ফনসেকার মাধ্যমে পরিচালিত বিভিন্ন অফশোর কোম্পানির মালিকানার অংশীদার। পাকিস্তান তেহরিক ই ইনসাফ, জামায়াতে ইসলামিসহ কয়েকটি দলের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে পানামা পেপারস কেলেঙ্কারি নিয়ে নওয়াজ শরিফ এবং তার পরিবারের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু হয়।

দলের উদ্বেগ সম্পর্কে পিএমল-এনের নেতা মালিকের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘অজানা একটি ভয় রয়ে গেছে। তবে আমরা আশাবাদী রায় নওয়াজ শরিফের পক্ষে আসবে।’

দলের আরেক নেতা হিনা পারভাইজ বাট অবশ্য দাবি করেছেন তাদের ভেতরে কোনো ভয় কাজ করছে না। তিনি বলেছেন, ‘পিএমল-এন শিবির আত্মবিশ্বাসী যে প্রধানমন্ত্রী অযোগ্য বলে ঘোষিত হবেন না। তিনি তার লক্ষ্য ও কাজের প্রতি মনোযোগী এবং কোনো কিছুই তাকে লক্ষ্যচ্যুত করতে পারবে না যেহেতু তিনি দোষী নন। আইন অনুসারেই রায় হবে এবং এটি বিরোধীদের আশা অনুযায়ী হবে না।’

মন্তব্য করুন

আপনার কমেন্ট লিখুন
আপনার নাম লিখুন