স্পোর্ট ডেস্ক :

কলম্বিয়ার বিপক্ষে কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে টাইব্রেকারে তিনটি পেনাল্টি ঠেকিয়েছেন আর্জেন্টিনার গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজ।
কলম্বিয়ার বিপক্ষে কোপা আমেরিকার সেমিফাইনালে টাইব্রেকারে তিনটি পেনাল্টি ঠেকিয়েছেন আর্জেন্টিনার গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজ।ছবি: এএফপি
কোপার দ্বিতীয় সেমিফাইনালে কলম্বিয়ার বিপক্ষে ‘টাইব্রেকার-বীর’ এমিলিয়ানো মার্তিনেজ। কলম্বিয়ার তিনটি পেনাল্টি ঠেকিয়ে তিনিই তো ফাইনালে তুললেন আর্জেন্টিনাকে। অথচ আর্জেন্টিনার জার্সিতে তাঁর অভিষেক গত মাসেই।

‘বীর’ হয়েও অ্যাস্টন ভিলার এই গোলকিপার যেন খুবই নির্লিপ্ত। তিনি মনে করেন টাইব্রেকারে পেনাল্টি ঠেকানোটা পুরোপুরিই ‘ভাগ্যের ব্যাপার’। তবে ফাইনালে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের বিপক্ষে তিনি আরও সাহসী থাকবেন বলেই জানিয়ে রেখেছেন।

ফাইনালে উঠে ১৯৯৩ সালের পর এই প্রথম বড় কোনো টুর্নামেন্ট জয়ের স্বপ্ন দেখছে মেসির আর্জেন্টিনা। সেমিফাইনালে আর্জেন্টিনার জয়ের নায়ক গোলকিপার মার্তিনেজ মনে করেন এবারের কোপা আমেরিকার শিরোপা তাঁর দলের জন্যই অপেক্ষা করছে, ‘আমাদের দারুণ একজন কোচ আছেন। বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় আছেন। আমরা এবারের কোপা জিততে যাচ্ছি।

দারুণ এই জয়ের পর মার্তিনেজের খুব মনে পড়ছে তাঁর পরিবারের কথা। করোনাভাইরাস মহামারির এই সময়ে জৈব সুরক্ষা বলয়ে থাকার কারণে অনেক দিন পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন তিনি। আর্জেন্টিনা দলটাই এখন তাদের পরিবার। তবে মার্তিনেজ খুশি দলটা স্বপ্নপূরণের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে যাওয়ায়, ‘আমরা ৪০ দিন ধরে জৈব সুরক্ষা বলয়ে বন্দী। পরিবারের সঙ্গ ছাড়া আছি। আমরা খেলোয়াড় ছাড়াও কোচিং স্টাফ, অন্যান্য কর্মকর্তাসহ মোট ৭০ জনের একটা পরিবার এখন আর্জেন্টিনা দল। খুব ভালো লাগছে আমরা সবাই মিলে স্বপ্নপূরণের খুব কাছে চলে এসেছি। আমরা কোপার ফাইনালে খেলতে চেয়েছিলাম। সেটি করতে পেরেছি।

কলম্বিয়ার বিপক্ষে পুরো ম্যাচেই ভালো খেলেছেন আর্জেন্টিনার গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজ।
কলম্বিয়ার বিপক্ষে পুরো ম্যাচেই ভালো খেলেছেন আর্জেন্টিনার গোলকিপার এমিলিয়ানো মার্তিনেজ।ছবি: এএফপি
ফাইনালে প্রতিপক্ষ ব্রাজিল। মার্তিনেজ মনে করেন, এ ম্যাচে জিততে হলে আর্জেন্টিনাকে নিজেদের পারফরম্যান্সকে অনেক ওপরে নিয়ে যেতে হবে, ‘ফাইনালে ব্রাজিল আমাদের প্রতিপক্ষ। তাদের হারিয়ে কোপা জিততে হলে আমাদের খুবই ভালো খেলতে হবে। ব্রাজিলের মাঠে ব্রাজিলকে হারাতে হলে পারফরম্যান্সে তাদের ছাপিয়ে যেতে হবে।

কলম্বিয়ার প্রশংসাই ঝরেছে আর্জেন্টিনা গোলকিপারের কণ্ঠে। তাঁর মতে, আর্জেন্টিনাকে প্রতিপক্ষ হিসেবে কলম্বিয়া যথেষ্ট চ্যালেঞ্জ জানিয়েছে। তারা দল হিসেবে যথেষ্ট কঠিনও, ‘আমরা এ ম্যাচে দ্রুত এগিয়ে গিয়েছিলাম। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে কলম্বিয়া গোল শোধ করে স্কোরলাইনটা ১-১ করে ফেলে। দলটা খুবই কঠিন আর শক্তিশালী। তবে সমতা থাকা অবস্থাতেও আমরা দুটি সহজ গোলের সুযোগ নষ্ট করেছি, যা আমাদের এগিয়ে নিতে পারত। কিন্তু শেষ পর্যন্ত টাইব্রেকার-ভাগ্যে জিততে হলো!

বীর হতে হলে ভাগ্যের সহায়তা লাগে। সেটি জানেন মার্তিনেজ। কলম্বিয়ার বিপক্ষে ভাগ্যই তাঁকে জয়ের নায়ক বানিয়েছে। ব্যাপারটি অস্বীকার করেননি আর্জেন্টিনার গোলকিপার। তিনি মনে করেন, আজকের দিনটাই ছিল তাঁর। আজ ভাগ্যের বরপুত্র হওয়াটা তাঁর জন্য নির্ধারিতই ছিল, পুরোটাই ভাগ্য। ভাগ্যই সবাইকে নায়ক বানায়। আজ আমার পালা ছিল, নায়ক হওয়ার।

 

রিপ্লাই দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here